পণ্যবাজার

২০১৮ সালে ভারতের কফি রফতানি কমেছে ৭%

বণিক বার্তা ডেস্ক | ১৯:২৪:০০ মিনিট, জানুয়ারি ১৩, ২০১৯

ভারতে উৎপাদিত কৃষিপণ্যগুলোর মধ্যে অন্যতম কফি। ভূ-প্রকৃতি ও জলবায়ুগত কারণে দেশটিতে উৎপাদিত রোবাস্তা কফির মান বেশ ভালো। প্রতি বছর ভারতীয় রফতানিকারকরা আন্তর্জাতিক বাজারে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ কফি রফতানি করে। ২০১৮ সালে ভারতের কফি রফতানি খাতে মন্দাভাব দেখা গেছে। এ সময় দেশটি থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে পানীয় পণ্যটির রফতানি আগের বছরের তুলনায় ৭ শতাংশের বেশি কমেছে। একই সঙ্গে গত বছর কফি রফতানি বাবদ ভারতের আয়ও কমেছে। কফি বোর্ড অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবর বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড ও এনামিক টাইমস।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে ভারত থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে ৩ লাখ ৫০ হাজার ২৮০ টন কফি রফতানি হয়েছে, যা আগের বছরের তুলনায় ৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ কম। ২০১৭ সালে দেশটি থেকে মোট ৩ লাখ ৭৮ হাজার ১১৯ টন কফি রফতানি হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে ভারত থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে কফি রফতানি কমেছে ২৭ হাজার ৮৩৯ টন।

বিদায়ী বছরে ভারত থেকে রফতানি হওয়া কফির মধ্যে ১ লাখ ৭৯ হাজার ৯০৩ টন ছিল রোবাস্তা, যা আগের বছরের তুলনায় ১৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ কম। আগের বছর ভারতীয় রফতানিকারকরা মোট ২ লাখ ১৮ হাজার ৪৬৩ টন রোবাস্তা কফি রফতানি করেছিল। অর্ধাৎ, এক বছরে ভারত থেকে রোবাস্তা কফির রফতানি কমেছে ৩৮ হাজার ৫৬০ টন।

গত বছর শুধু ভারত থেকে কফি রফতানি কমেনি, বরং পানীয় পণ্যটি রফতানি করে ভারতীয় রফতানিকারকদের আয়েও মন্দাভাব বজায় ছিল। এ সময় কফি রফতানি করে ভারতীয় রফতানিকারকরা মোট ৫ হাজার ৭৭০ কোটি ৪৮ লাখ রুপি আয় করেছিল। আগের বছরে কফি রফতানি বাবদ ভারতীয় রফতানিকারকদের আয় ছিল ৬ হাজার ৯১ কোটি রুপি। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে কফি রফতানি করে ভারতীয় রফতানিকারকদের আয় কমেছে ৩২০ কোটি ৫২ লাখ রুপি।