পণ্যবাজার

বতসোয়ানায় ১২৭ ক্যারেটের হীরার সন্ধান

বণিক বার্তা ডেস্ক    | ২১:১১:০০ মিনিট, জানুয়ারি ১২, ২০১৯

আফ্রিকা মহাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে ভূ-সীমান্তবেষ্টিত দেশ বতসোয়ানা। মূল্যবান খনিজ উত্তোলন ও রফতানির জন্য দেশটির বিশেষ পরিচিতি রয়েছে। বিশেষত বতসোয়ানার কারাওয়ি খনিটি দুর্লভ ও মহামূল্যবান হীরা উত্তোলনের জন্য বিখ্যাত। প্রতি বছর এ খনি থেকে বড় আকারের হীরা উত্তোলন হয়। এ ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের শুরুতে কারাওয়ি খনি থেকে ১২৭ ক্যারেটের একটি মূল্যবান অমসৃণ হীরা উত্তোলন করা হয়েছে। খবর মেটাল বুলেটিন ও মাইনিংডটকম।

বতসোয়ানার কারাওয়ি খনি থেকে ১২৭ ক্যারেটের হীরাটির সন্ধান পেয়েছে কানাডীয় প্রতিষ্ঠান লুকারা ডায়মন্ড করপোরেশন। এক বিবৃতিতে ভ্যাঙ্কুভারভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী এইরা থমসন জানান, সদ্য উত্তোলন করা ১২৭ ক্যারেটের অমসৃণ হীরাটির রঙ সাদা। দেখতে স্বচ্ছ স্ফটিকের মতো। মূলত গহনা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে এ ধরনের হীরার চাহিদা বেশি থাকে। রঙ ও আকারের কারণে এটি বেশ মূল্যবান।

২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় মূল্যবান ধাতু উত্তোলনকারী প্রতিষ্ঠান লুকারা ডায়মন্ড করপোরেশন। ২০১২ সাল থেকে বতসোয়ানার কারাওয়ি খনি থেকে হীরা উত্তোলন করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। এখন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটি এ খনি থেকে ১০০ ক্যারেটের বেশি মোট ১২৯টি হীরা উত্তোলন করেছে। এ খনি থেকে ৩০০ ক্যারেটের বেশি হীরা উত্তোলন হয়েছে ১২টি। এর মধ্যে পাঁচটি হীরা গত বছর উত্তোলন করা হয়েছে।

এমনকি বিশ্বের ইতিহাসে উত্তোলন হওয়া বড় আকারের হীরাগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চটি এ খনি থেকে উত্তোলন করেছে লুকারা ডায়মন্ড। এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, চলতি বছর শেষে বতসোয়ানার কারাওয়ি খনি থেকে ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ৩ লাখ থেকে ৩ লাখ ৩০ হাজার ক্যারেট হীরা উত্তোলনের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।