শেয়ারবাজার

লেনদেনের শীর্ষে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ : শেয়ারদর বেড়েছে ৭.৬৯%

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২২:২৫:০০ মিনিট, জানুয়ারি ১০, ২০১৯

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল ৪ হাজার ১১৪ বারে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ১৩ লাখ ৮৪ হাজার ৯৩৫টি শেয়ারের লেনদেন হয়। দিন শেষে কোম্পানিটি লেনদেন তালিকার শীর্ষ স্থানে উঠে আসে।

ডিএসইতে গতকাল শেয়ারটির সর্বশেষ দর ৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ বা ১৮ টাকা ৯০ পয়সা বেড়ে দাঁড়ায় ২৬৪ টাকা ৮০ পয়সায়। দিনভর দর ২৪৭ টাকা থেকে ২৬৭ টাকা ৪০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। সমাপনী দর ছিল ২৬৩ টাকা, যা এর আগের কার্যদিবসে ছিল ২৪৫ টাকা ৯০ পয়সা। এক বছরে শেয়ারটির সর্বনিম্ন দর ছিল ১৮৫ টাকা ও সর্বোচ্চ দর ২৮৭ টাকা।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য ৪৮ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে এ কোম্পানি। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮ টাকা ৯৬ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ৩১ টাকা ৫৩ পয়সা। গত ২০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত এজিএমে এর অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৪০ পয়সা, যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ২ টাকা ২৪ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ এর এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৩৩ টাকা ৯৩ পয়সায়।

২০১৭ হিসাব বছরে ৪৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় অলিম্পিক। সে বছর ইপিএস হয় ৮ টাকা ২২ পয়সা ও এনএভিপিএস ২৭ টাকা ৭ পয়সা। ২০১৬ সালে ৪০ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ দেয় কোম্পানিটি।

১৯৮৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এ কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ২০০ কোটি টাকা ও পরিশোধিত মূলধন ১৯৯ কোটি ৯৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ৪৩০ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। মোট শেয়ারের ২৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ উদ্যোক্তা পরিচালক, ১৫ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠান, ৪১ দশমিক ১৩ শতাংশ বিদেশী ও ১৬ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।