টেলিকম ও প্রযুক্তি

মানসম্মত সেবাদানে ব্যর্থতায় রিলায়েন্স জিওকে জরিমানা

বণিক বার্তা ডেস্ক | ২১:৩৭:০০ মিনিট, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮

ভারতের টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অব ইন্ডিয়া (ট্রাই) দেশটির বেশ কয়েকটি  সেলফোন অপারেটরকে জরিমানা করেছে। চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে এসব অপারেটর তাদের বিভিন্ন সেবার ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুত মান বজায় রাখতে না পারায় এ জরিমানা করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এর মধ্যে মুকেশ আম্বানির নেতৃত্বাধীন রিলায়েন্স জিও ইনফোকমকে সর্বোচ্চ জরিমানা করেছে ট্রাই। সংশ্লিষ্ট সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে পিটিআই এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রের তথ্য অনুযায়ী, বিভিন্ন প্যারামিটার ও সেবাক্ষেত্র পর্যালোচনা করে রিলায়েন্স জিও, ভারতী এয়ারটেল, ভোডাফোন ইন্ডিয়া ও আইডিয়া সেলুলারকে জরিমানা করেছে ট্রাই। এসব অপারেটর এখন জরিমানা পরিশোধের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

সূত্র জানিয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে গ্রহণযোগ্য সেবা দিতে না পারায় রিলায়েন্স জিওকে সর্বোচ্চ জরিমানা করেছে ট্রাই। এ অপারেটরটিকে প্রায় ৩৪ লাখ রুপি জরিমানা করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। পয়েন্ট অব ইন্টারকানেক্ট কনজেসশন, কল সেন্টার বা গ্রাহক সেবাকেন্দ্রের সুবিধা এবং একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে অপারেটরদের (ভয়েস টু ভয়েস) উত্তর দেয়া কলগুলোর হার— সেবামানের এ প্যারামিটারগুলোর পূরণ করতে না পারায় রিলায়েন্স জিওকে জরিমানা করেছে ট্রাই।

২০১৬ সালে ভারতের টেলিযোগাযোগ  সেবা খাতে প্রবেশ করে রিলায়েন্স জিও ইনফোকম। এর পর থেকেই গ্রাহক টানতে অপারেটরটি বিভিন্ন কৌশল গ্রহণ করে। এতে সফলও হয়। ফলে যাত্রার দুই বছরের মধ্যে বিপুল সংখ্যক গ্রাহক টানতে সমর্থ হয়েছে রিলায়েন্স জিও। কার্যক্রম চালুর দেড় বছরের মধ্যে মুনাফায় পৌঁছাতে পেরেছে প্রতিষ্ঠানটি। অপারেটরটির মূল্যছাড় কৌশল ভারতের টেলিযোগাযোগ খাতে বড় ধরনের প্রভাব ফেলেছে। বাজার প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে অন্য অপারেটরগুলোও এখন মূল্য ছাড় দিচ্ছে। এর ফলে দেশটির এ খাতে অপারেটরদের মধ্যে মূল্যযুদ্ধ তীব্র আকার ধারণ করছে।

কয়েক মাস আগে ভারতের টেলিযোগাযোগ খাতে গ্রাহক সেবার মান বাড়াতে উদ্যোগ নেয় ট্রাই। এ লক্ষ্যে সংস্থাটি আইন কঠোর করেছে এবং নতুন কোয়ালিটি অব সার্ভিস (কিউওএস) বেঞ্চমার্ক মেনে চলতে অপারেটরদের নির্দেশ দিয়েছে। গত বছরের ১ অক্টোবর থেকে ট্রাইয়ের এ নির্দেশনা কার্যকর হয়েছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে গ্রাহক সেবার মান বজায় না রাখায় ভারতী এয়ারটেলকে প্রায় ১১ লাখ রুপি জরিমানা করেছে ট্রাই। পোস্টপেইড, কল সেন্টারে গ্রাহকদের সুবিধাদানসহ কয়েকটি বিষয়ে নির্দিষ্ট মান বজায় রাখেনি এয়ারটেল। এ কারণে প্রতিষ্ঠানটিকে জরিমানা করা হয়। আইডিয়া সেলুলারকে ১২ লাখ ৫০ হাজার রুপি জরিমানা করা হয়েছে। এ অপারেটরের বিরুদ্ধে কলড্রপসহ কয়েকটি অভিযোগ ছিল। অন্যদিকে ভোডাফোনকে ৪ লাখ রুপি জরিমানা করেছে সংস্থাটি। এ অপারেটরটির বিরুদ্ধেও নানা অভিযোগ ছিল।

দীর্ঘ সময় ধরে ভারতে গ্রাহক সংখ্যায় শীর্ষে ছিল ভারতী এয়ারটেল। তবে ভোডাফোন ইন্ডিয়া ও আইডিয়া সেলুলার তাদের কার্যক্রম একীভূত করে ভোডাফোন আইডিয়া লিমিটেড নামে আত্মপ্রকাশ করায় এখন গ্রাহক সংখ্যায় এটি ভারতের সবচেয়ে বড় অপারেটর। গ্রাহক সংখ্যা বিবেচনায় ভারতী এয়ারটেল এখন দেশটির দ্বিতীয় বৃহৎ সেলফোন অপারেটর।

এর আগে ট্রাইয়ের চেয়ারম্যান আরএস শর্মা জানিয়েছিলেন, জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে যেসব অপারেটর গ্রাহক সেবার মান বজায় রাখেনি, তাদেরকে জরিমানা করা হবে। এসব অপারেটরকে জরিমানা আরোপের চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছেন তারা। তবে এ বিষয়ে তিনি বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেননি।

সেবার মানদণ্ড মেনে না চলায় যেসব অপারেটরকে জরিমানা করা হচ্ছে, তাদের নাম প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ট্রাই। ফলে তাদের নাম সংবাদমাধ্যম কিংবা ওয়েবসাইটে কখনো আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করছে না নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।