টকিজ

সুইজারল্যান্ডে শ্রীদেবীর ভাস্কর্য...

ফিচার ডেস্ক | ২১:১১:০০ মিনিট, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮

অনেক দিন হয়ে গেল পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন ভারতীয় ছবির কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবী। কিন্তু অভিনয়ের জগতে যে নৈপুণ্য রেখে গেছেন, সে কারণে প্রতিনিয়তই তাকে স্মরণ করা হচ্ছে, ভক্তদের শ্রদ্ধা ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন। অবাক করার বিষয়, নিজ দেশ ভারত তো বটেই, সুইজারল্যান্ডের মতো দেশের উন্নয়নেও নাকি পরোক্ষভাবে ভূমিকা রেখেছেন শ্রীদেবী। আর এ কারণেই তার ভাস্কর্য স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি।

জানা গেছে. চাঁদনী ছবির জন্য আল্পস পর্বতমালার সামনে শ্রীদেবীর নাচ-গানের দৃশ্য, রোমান্টিক অভিনয় নাকি অসংখ্য পর্যটককে দেশটিতে ঢুঁ মারতে উৎসাহিত করেছিল। সুইজারল্যান্ডের পর্যটন বিভাগের ভাষ্য, শ্রীদেবীর এ আগমনই সুইজারল্যান্ডে ব্যাপক মাত্রায় পর্যটক বৃদ্ধিতে প্রভাব রেখেছিল। ভারত থেকেই হাজার হাজার পর্যটক চাঁদনী ছবির মুক্তির পর ছুটে  গেছেন দেশটি ঘুরতে। পর্যটন শিল্প চাঙ্গা করার এ কৃতিত্বস্বরূপ দেশটিতে শ্রীদেবীর একটি ভাস্কর্য স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির পর্যটন বিভাগ।

এর আগে সুইজারল্যান্ডে পরিচালক যশ চোপড়ার ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়। ১৯৬৪ সালে রাজ কাপুরের ‘সঙ্গম’, ১৯৬৭ সালে ‘অ্যান ইভিনিং ইন প্যারিস’ ছবির শুটিং হয়েছিল এখানে। মূলত ‘সঙ্গম’-এর পর থেকে বলিউডের ছবির নির্মাতাদের পছন্দের শুটিং স্পটে পরিণত হয় সুইজারল্যান্ড। ১৯৯৫ সালে আদিত্য চোপড়ার ছবি ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’ ছবির পর সুইজারল্যান্ডের পর্যটন খাত বিশাল ব্যবসা করতে সক্ষম হয়। দেশটির পর্যটন বিভাগের তথ্যমতে, ১৯৯২ সালে ২৮ হাজার ৮৩৪ ভারতীয় সুইজারল্যান্ড ভ্রমণ করেন। এর ২৫ বছর পর ২০১৭ সালে এ সংখ্যা এসে দাঁড়ায় ৩ লাখ ২৬ হাজার ৪৫৪ জনে।

 

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস