খেলা

ভারতের জয় ছিনতাই!

২২:৫৫:০০ মিনিট, মার্চ ২১, ২০১৭

রাঁচি টেস্টে পঞ্চম ও শেষ দিন চরম নাটকীয়তার প্রতীক্ষায় ছিলেন সবাই। দুই ইনিংস মিলে ১২৯ রানে এগিয়ে থেকে দিন শুরু করা ভারত জয়েরই স্বপ্ন দেখছিল। লাঞ্চের আগেই ম্যাট রেনশ ও স্টিভেন স্মিথের বিদায় স্বাগতিকদের আশার পালে হাওয়া বইয়ে দেয়। তবে বিরাট কোহলিদের আশায় জল ঢেলে দিলেন পিটার হ্যান্ডসকম্ব আর শন মার্শ। দুজন বুক চিতিয়ে লড়াই করে অস্ট্রেলিয়াকে প্রায় নিশ্চিত এক হারের হাত থেকে বাঁচালেন।

লাঞ্চ বিরতির ঠিক ৩০ মিনিট আগে জাদেজার বলে অসি দলনায়ক স্টিভেন স্মিথ বোল্ড হয়ে ফিরলে উইকেটে আসেন হ্যান্ডসকম্ব। তার আগের ওভারেই ইশান্ত শর্মার বলে পতন ম্যাট রেনশর। পরপর দুই ওভারে দুজনের বিদায়ের পর ভারতকে ব্যাটিং করানো থেকে ৮৯ রান দূরে অস্ট্রেলিয়া। স্বাগতিকরা ছিল ক্ষুধার্ত বাঘের মতো। কিন্তু কোনো কৌশলই যেন এদিন কাজে আসেনি জাদেজা, রবিচন্দ্র অশ্বিন আর ইশান্ত শর্মাদের। ৪ ঘণ্টা পরও আউট করা যায়নি হ্যান্ডসকম্বকে। মার্শ ফিরে গেছেন, তাও ম্যাচ শেষ হওয়ার খুব বেশি আগে নয়। এ দুজনের বীরত্বেই রাঁচি টেস্ট ড্র করতে সমর্থ হয় সফরকারী দলটি।

৬২ ওভার ১ বল ব্যাটিং করে অস্ট্রেলিয়াকে হার থেকে নিরাপদ দূরত্বে নিয়ে যান মার্শ-হ্যান্ডসকম্ব। এ পথে বোর্ডে যোগ করেন ১২৪ রান। মার্শ ১৯৭ বলে ৫৩ রান করে জাদেজার শিকার হয়ে ফিরলেও হ্যান্ডসকম্ব কোনো সুযোগই দেননি। ২০০ বল খেলে ৭২ রানে অপরাজিত থাকেন। মার্শের বিদায়ের পর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে নিয়ে ৩ ওভার ২ বল ও ম্যাথু ওয়েডকে নিয়ে ৫ ওভার ২ বল ব্যাটিং করে অস্ট্রেলিয়ার ড্র নিশ্চিত করেন হ্যান্ডসকম্বই। তার কৃতিত্বেই বিফলে যায় জাদেজার ৯ উইকেট ও চেতেশ্বর পুজারার ডাবল সেঞ্চুরি। শেষের নায়ক হ্যান্ডসকম্ব হলেও ৫২৫ বলে ২০২ রানের বীরোচিত ইনিংস খেলা পুজারাই হয়েছেন ম্যাচসেরা।

২৫ মার্চ ধর্মশালায় শুরু হবে সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্ট। প্রথম তিন টেস্ট শেষে সিরিজ ১-১-এ সমতায় থাকায় ধর্মশালায়ই সিরিজের নিষ্পত্তি ঘটবে। ক্রিকইনফো